সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের কী এবং কেন তা প্রয়োজন?

সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার মার্কেটিং প্লান এবং তা ডেভেলপের জন্য আপনার প্রথম পদক্ষেপ কী? আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার ব্যবসায়িক উপস্থিতি তৈরি করা এবং বিজ্ঞাপন শুরু করার আগে, আপনি প্রথমে ঠিক করুন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি কী অর্জন করতে চান। যাত্রা শুরু করার আগে, আপনি কোথায় যেতে চান তা নির্ধারণ করা গুরুত্বপূর্ণ। মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রেও এটি একই, আপনি সফল কিনা তা পরিমাপ করার একটি উপায় প্রয়োজন৷ আপনার লক্ষ্য গোল পোস্টে গিয়ে গোলা দেয়া। আপনি যেতে পারলে এবং গোলা দিকে পারলে আপনার স্কোরে সেটা যোগ হবে।
আপনি যখন কোন লক্ষ্য এবং অর্জন ছাড়া একটি মার্কেটিং ক্যাম্পেইন শুরু করছেন, তখন স্রেফ কোন গন্তব্য ছাড়া পথ চলা শুরু করছেন। আপনি এখন ভাবতেই পারেন, কেন অপেক্ষা করবেন? এবং কেন আপনি যা অর্জন করতে চান তা লিখে সময় নষ্ট করবেন? আপনি মনে করতেই পারেন, আপনার ভালো ধারণা আছে এবং আপনি ভুল করবেন না।
আপানর চিন্তা ঠিক আছে। কিন্তু আমি আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি যে মার্কেটিং ক্যাম্পেইন শুরু করার আগে আপনার মার্কেটিংয়ের লক্ষ্য এবং অর্জনগুলি যদি সুস্পষ্টভাবে ঠিক না করেন তাহলে আপনি সফল না ব্যর্থতা সঠিক ভাবে হিসাব করতে পারবেন না।
এটি থাকলে আপনার টিমের অন্যান্য সদস্যারা সহজে বুঝেতে পারবে, তাদের নিয়ে আপনি কী অর্জন করতে চান। তাদের সাথে আপনার কম্যুনিকেশন সহজ হবে, আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করবে, এবং আপনি আপনর সাফল্যের মূল্যায়ন করতে পারবেন।
ডিকশনারি ডটকমের মতে, লক্ষ্য হল ফলাফল বা অর্জন যার দিকে প্রচেষ্টা পরিচালিত হয়।
আর, অ্যান্টোইন ডি সেন্ট-এক্সুপেরি মতে, “পরিকল্পনা ছাড়া একটি লক্ষ্য কেবল একটি ইচ্ছা।” –
সুতরাং এটি নির্দিষ্ট করে যে আপনি কী অর্জন করতে চান এবং এটি নিশ্চিত করতে সাহায্য করে যে আপনি এবং আপনি যাদের সাথে কাজ করছেন তারা সবাই একত্রিত।
প্রকৃতপক্ষে, ২০০৫ সালে গেইল ম্যাথিউসের গবেষণায় দেখা গেছে যে লোকেরা যখন তাদের লক্ষ্যগুলি লিখে রাখে, তখন তারা উল্লেখযোগ্য ভাবে আরও বেশি অর্জন করে। যদিও গবেষণাটি ব্যক্তিগত লক্ষ্যের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে করা হয়ে ছিল, তবে এটি ব্যবসার জন্য আলাদা নয়।
একটি ব্যবসার জন্য লক্ষ্যগুলি লিখে রাখা সত্যিই তাদের অর্জনে সহায়তা করে।
রাজশাহীর রিয়াজ আহমেদ রাজশাহীতে অবস্থিত রয়্যাল কেক এন্ড পেস্ট্রির ব্যবসার সাথে আমি আপনাকে পরিচয় করিয়ে দিই।
রিয়াজ যখন রাজশাহীর উপশহরে বেকারি খুলেছিল তখন রয়্যাল কেক এন্ড পেস্ট্রি’র শুরু হয়েছিল। তার তৈরি কেক রাজশাহীতে সত্যিই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এবং রিয়াজ একটি ওয়েবসাইট শুরু করে যেখানে লোকেরা হোম ডেলিভারির জন্য কেক অর্ডার করতে পারে।
রিয়াজ কেক বিক্রি এবং তার সৃষ্টির মাধ্যমে মানুষকে আনন্দ দেওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে একটি কোম্পানি শুরু করেন। কিন্তু তিনি নিজের জন্য স্পষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে এবং প্রতি বছর সেগুলি লিখে রেখে তার ব্যবসা বাড়াতে সক্ষম হন। যখন তিনি কর্মীদের মিটিংয়ে নিয়ে আসেন, তখন তিনি তাদের সাথে লক্ষ্যগুলি ভাগ করে নেন, যাতে তারা সবসময় কী অর্জন করার চেষ্টা করছে সে সম্পর্কে তারা স্পষ্ট থাকে।
রিয়াজ দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে এই অভ্যাসটি তার ব্যবসার সাফল্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ব্যবসার বিভিন্ন স্তরে লক্ষ্য আছে। উদাহরণস্বরূপ, রয়্যাল কেক এন্ড পেস্ট্রির এর সামগ্রিক ব্যবসায়িক লক্ষ্য হল কেক বিক্রি করা। কিন্তু বিভিন্ন দল বা বিভিন্ন ভূমিকার লোকেদের নিজস্ব লক্ষ্য আছে।
উদাহরণস্বরূপ, মার্কেটিং বিভাগের লক্ষ্য থাকতে পারে রয়্যাল কেক এন্ড পেস্ট্রি’র ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানো এবং হয়তো অপারেশন টিমের লক্ষ্য প্যাকেজিং এবং শিপিং বা কেকের খরচ কমানো। এগুলি হল ছোট-ছোট লক্ষ্য। যার মাধ্যমে এগিয়ে যাওয়া যায় ব্যবসার মূল লক্ষ্য পূরণের দিকে, কেক বিক্রি করে।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.