ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসাবে চাকরি | পেশা পরামর্শ | ক্যারিয়ার টিপস

ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি অফিসার (এমটিও) হচ্ছে অনভিজ্ঞ ফ্রেশারদের জন্যে পোস্ট। যেকোনো প্রতিষ্ঠানে, যেকোনো বিভাগে একজন ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও কাজ করতে পারেন। বর্তমানে সদ্য গ্রাজুয়েটদের অন্যতম আগ্রহের চাকরি হলো, প্রতিষ্ঠানে ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা। তরুণদের এই আগ্রহের পেছনে প্রধান কারণ হল, নিজের মেধা আর সৃজনশীলতার প্রয়োগ ঘটিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের সুযোগ পান এ পদে কর্মরত ব্যক্তিরা। পাশাপাশি, একজন ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি কে প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট কিছু কৌশলগত সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এসব সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এনে দক্ষতার পরিচয় দেয়া অত্যন্ত জরুরী। কৌশলগত এসব সিদ্ধান্তের সফলতা ভবিষ্যতে ক্যারিয়ারের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আসুন জেনে নিই ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি সম্পর্কে।

 

উদ্দেশ্য কী :

বর্তমানে আমাদের দেশের শিক্ষাব্যবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে একজন শিক্ষার্থী মাস্টার্স শেষ করে ফেললেও প্র‍্যাক্টিকেল কাজে তেমন একটা পারদর্শী হতে পারে না। যার ফলে, সব ধরনের কোম্পানিগুলোতেই ফ্রেশারদের এখন ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। সাধারণত,  ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও হিসেবে নেয়া হয় মূলত শিক্ষানবিশ অর্থাৎ কাজ শিখিয়ে নেয়ার জন্যে। প্রবিশনারি অফিসার বা শিক্ষানবিশ কর্মকর্তা শব্দজোড়াকে একটু আধুনিক ভাবে উপস্থাপন করার জন্য সাম্প্রতিক কালে অনেক প্রতিষ্ঠান ’ ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও’ টার্মটি ব্যবহার করছে।

 

দায়িত্ব

ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও পদের জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হওয়ার পর প্রতিষ্ঠান ভেদে তিন মাস থেকে এক বছর তাদেরকে কোন দায়িত্ব দেয়া হয় না। এই সময় ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনিদেরকে শেখানো হয় বলে, এই সময়কে বলা হয় প্রবেশ পিরিয়ড। তাদেরকে এক্সটারনাল ও ইন্টারনাল ট্রেনিং এবং এটাচমেন্ট টু পার্টিকুলার ডিভিশন প্রদান করা হয়। এভাবে প্রবেশনাল পিরিয়ড শেষ হলে তাদেরকে বিভিন্ন বিভাগে নিযুক্ত করে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয়।

 

শিক্ষাগত যোগ্যতা :

প্রায় সব ধরনের কোম্পানি এবং প্রতিষ্ঠানে ,  ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও হিসেবে নিয়োগের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা ডিপ্লোমা থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত সীমাবদ্ধ। ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি অফিসার নিয়োগের ক্ষেত্রে অনেক সময় বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক এবং প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান কোন কোন পাবলিক ইউনিভার্সিটি বা প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে তা উল্লেখ করে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এর সাথে সাথে অনেক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে বলে দেয়া হয় কোন কোন সাবজেক্টের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে তাদের নূন্যতম কি ধরণের রেজাল্ট থাকতে হবে। যেমন: সাধারণত বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে লেখা থাকে, এমবিএ/এমবিএম বা ব্যাংকিং, ফিন্যান্স, মার্কেটিং, ইকোনমিক্স, ইংলিশ, অ্যাকাউন্টিং, ম্যানেজমেন্ট, কম্পিউটার সায়েন্স, স্ট্যাটিসটিকস বা ম্যাথম্যাটিকসে অনার্সসহ মাস্টার্স ডিগ্রিধারীরা পদটিতে আবেদন করতে পারবেন। শিক্ষাজীবনে কমপক্ষে দুইটি বা তিনটি প্রথম শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএ থাকতে হবে। কোনও তৃতীয় বিভাগ থাকা যাবে না।

 

দক্ষতা এবং গুণাবলী

বর্তমানে যে কোন প্রতিষ্ঠিত বা প্রতিশ্রুতিশীল প্রতিষ্ঠান ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও হিসেবে নিয়োগ দেয়ার জন্য মেধাবী, সপ্রতিভ ও উদ্যমী তরুণ-তরুণী খুঁজে। আগ্রহী প্রার্থীর জোরালো গাণিতিক দক্ষতা, যোগাযোগের সক্ষমতা, কম্পিউটারে ভালো দখল, নিষ্ঠা ইত্যাদি গুণ থাকতে হবে। এছাড়া দলবদ্ধভাবে কাজ করার যোগ্যতাও থাকতে হবে। ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও হিসেবে কাজ করতে চায়লে অবশ্যই স্বপ্রণোদিত, দায়িত্বশীল এবং লক্ষ্য ভিত্তিক হতে হবে। ইতিবাচক এবং নমনীয় মনোভাব থাকতে হবে। চাপ এবং দীর্ঘ সময়ের মধ্যে কাজ করতে সক্ষম হতে হবে। ভালো আন্তঃব্যক্তিগত দক্ষতা থাকতে হবে। রিপোর্ট লেখার উপর ভালো দক্ষতা থাকতে হবে। এর সঙ্গে সঙ্গে ইংরেজি ও বাংলায় ভালো যোগাযোগ দক্ষতা থাকতে হবে।

 

কোন ডিপার্টমেন্ট:

বেশিরভাগ,  ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও হিসেবে নিয়োগের ক্ষেত্রে কোন ডিপার্টমেন্টে নেয়া হবে ব হতে পারে এমনটা উল্লেখ করা হয় না। কিন্তু ইন্টার্ভিউ এর সময় ক্যান্ডিডেটের কাছে থেকে জিজ্ঞেস করে নেয়া হয় সে কোন ডিপার্টমেন্টে কাজ করতে আগ্রহী, অথবা এই মুহূর্তে এই এই ডিপার্টমেন্ট পজিশন ফাঁকা আছে ক্যান্ডিডেট কাজ করতে আগ্রহী কি না? কিছু কিছু সময় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়ে থাকে কোন ডিপার্টমেন্টের জন্য নেয়া হচ্ছে।

 

বেতন কাঠামো:

ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিও’র নির্দিষ্ট কোনো বেতন কাঠামো নেই। তবে সাধারণত, শুরুতে বেতন ধরা হয় সর্বনিম্ন ১০ থেকে ১৮ হাজার টাকা। এ সাথে কখনও কখনও কিছু প্রতিষ্ঠান ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনিদের ফ্রি লঞ্চ, মোবাইল ফোন বিলের সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে। প্রবেশ পিরিয়ড শেষ হলে ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি বা এমটিওকে এসিস্টেন্ট অফিসার পদে উন্নীত করা হয় এবং বেতন বাড়ানো হয়। দেড় থেকে দুই বছর লেগে থাকলে জুনিয়র এক্সিকিউটিভ পদ দেয়া হয় এবং যোগ হয় বাড়তি বেতন।

You May Also Like

About the Author: Shams Biswas

4 Comments to “ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসাবে চাকরি | পেশা পরামর্শ | ক্যারিয়ার টিপস”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.