বিশ্বের শীর্ষ ১০ নগর কর্তৃপক্ষ

 

১. সাংহাই
বিশ্বের সব চেয়ে বেশি লোক বাস করে এই শহরে। ১৬টা জেলা এবং ১টা বিভাগে বিভক্ত এই শহর। মোট ২১০টা পৌরসভা এবং উপজেলা রয়েছে এখানে। ব্যস্ততম এই শহরকে বিশ্বের আর্থিক ব্যবস্থার কেন্দ্রও বলা হয়। এখান আছে বিশ্বের ব্যস্ততম কন্টেইনার পোর্ট। ২০১৩ সালের আদমশুমারি অনুসারে ২৪ মিলিয়ন লোকের বস এই শহর। সাংহাইয়ের মেয়রের পূর্ণ পদবী হল, মেয়র অফ সাংহাই মিউনিসিপাল পিপলস গভারমেন্ট। চীনের প্রাদেশিক গভর্নরের সমমর্যাদা পেয়ে থাকেন সাংহাইয়ের মেয়র। গভর্নর যেমন আদেশ জারী করতে পারে মেয়রও তেমন আদেশ জারী কারার ক্ষমতা রাখে। সাংহাইয়ের বর্তমান মেয়র হলেন। ইয়াং জিয়ং। তবে সাংহাইয়ের মেয়রের থেকেও ক্ষমতা ধর হলেন কমিউনিস্ট পার্টির চীন সাংহাই পৌর কমিটির সম্পাদক। সাংহাই পৌর-সরকারের আরো দুটি গুরুত্বপূর্ণ পদ হল: কংগ্রেস সভাপতি এবং সম্মেলন চেয়ারম্যান।

২. করাচী
২০১৩ সালের আদমশুমারি অনুসারে ২৩ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন লোকের বাস পাকিস্তানের বৃহত্তম শহর এবং প্রাক্তন রাজধানীতে। আরব সাগরের তীরে ‘করাচী বন্দর’ এবং ‘বিন কাশেম বন্দর’ ঘিরে গড়ে উঠা এই শহর দেশটির অর্থনৈতিক প্রাণ কেন্দ্রও। ২০০৯ সালে এ শহরের জিডিপি ছিল ৭৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এবং আশাকরা হচ্ছে ২০২৫ সালে তা ১৯৩ মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। ১৯৩৩ সালে করাচী পৌরসভা গঠন করা হয়। ১৯৭৬ সালে করাচী মিউনিসিপাল কর্পোরেশনকে করাচী মেট্রোপলিটন কর্পোরেশনে উন্নত করা হয়। ২০০০ সালে শহরটি ১৮টি জেলায় ভাগ করে সিটি ডিসট্রিক্ট গভর্নমেন্টের আওতায় আনা হয়। যার প্রধান হলেন ইউনিয়ন নাজিম (কেন্দ্রীয় মেয়র) এবং জেলা সমন্বয় কর্মকর্তার (ডিসিও)। প্রতিটি জেলায় ১৩জন কাউন্সিলার এবং একজন করে নিজাম বা মেয়র রয়েছে।

৩. লন্ডন
টেমস নদীর তীরে অবস্থিত যুক্তরাজ্যের রাজধানী। ১৬১০ বর্গ কিমি’র এই শহরে প্রায় ৭০ লক্ষ লোকের বসতি। এই সুবৃহৎ শহরাঞ্চলটি ৩৩টি রাজনৈতিক এককে বিভক্ত। কেন্দ্রে অবস্থিত সিটি অফ লন্ডন ছাড়াও রয়েছে অধীনস্থ ৩২টি বরো। কেন্দ্রীয় অঞ্চলটিকে মধ্য লন্ডন নামে ডাকা হয়। দু’জন মেয়র আছেন এ শহরে। একজন হচ্ছে লর্ড মেয়র এবং আরেকজন হচ্ছেন মেয়র অব লন্ডন। লর্ড মেয়র একটি প্রাচীন, অরাজনৈতিক এবং অলংকারিক পদ। লর্ড মেয়রের মূল দায়িত্ব লন্ডনের আর্থিক খাতের প্রতিনিধিত্ব করা। ইনি শুধুমাত্র এক বৎসরের জন্য নির্বাচিত হন কাউন্সিলরদের দ্বারা। অন্যদিকে মেয়র অব লন্ডন একটি পুরোপুরি রাজনৈতিক পদ। প্রতি চার বৎসর অন্তর অন্তর মেয়র নির্বাচিত হন। কার্যত বৃহত্তর লন্ডনের প্রশাসনিক কাঠামো নিয়ন্ত্রণ করে মেয়র অব লন্ডন। বর্তমান মেয়র অব লন্ডন, বরিস জনসন।

৪. ঢাকা
জনসংখ্যার বিচারে বিশ্বের দশম বৃহত্তর শহর ঢাকা। ২০১১ সালের হিসাব অনুসারে ১ কোটি ২০ লক্ষ লোকের বস এই শহরে। ১৮৬৪ সালের পয়লা আগস্ট ঢাকা মিউনিসিপ্যালিটি’র সৃষ্টি হয়। তৎকালীন ঢাকার ম্যাজিস্ট্রেট পদাধিকারবলে ঢাকার চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। ১৮৮৫ সালে সর্বপ্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান হন আনন্দ চন্দ্র রায়। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর হতে সরকার কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিই চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৭৭ সালের পৌরসভা অধ্যাদেশ জারি হবার পর হতেই চেয়ারম্যানের সাথে সাথে ওয়ার্ড কমিশনার নির্বাচিত হবার পদ্ধতি চালু হয়। ঐ অধ্যাদেশ বলে ১৯৭৮ সালে ঢাকা মিউনিসিপালিটিকে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনে (ডিসিসি) পরিবর্তিত হয়। ডিসিসি’র প্রথম সরাসরি ভোটে নির্বাচিত মেয়র বা নগরপাল ছিলেন মোহাম্মদ হানিফ। তিনি ১৯৯৪ হতে ২০০২ সাল পর্যন্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১১ সালের ২৯ নভেম্বর জাতীয় সংসদে বিল পাশের মাধ্যমে, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন বিলুপ্ত করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নামে স্বতন্ত্র দুইটি কর্পোরেশন গঠন করা হয়। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ৩৬টি এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ৫৬টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত হয়। বিভাজনের পূর্বে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন ৯২টি প্রশাসনিক ওয়ার্ডে বিভক্ত ছিল এবং প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন কমিশনার দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিল। এছাড়াও মহিলাদের জন্য ৩০টি সংরক্ষিত কমিশনার পদ ছিল।

৫. ইস্তানবুল
তুরস্কের অন্যতম প্রধান শহর। এর পুরনো নাম কনস্টান্টিনোপল। এছাড়া এটি বাইজান্টিয়াম পরিচিত ছিল। ১৪৫৩ সালে এটি তৎকালীন উসমানীয় সাম্রাজ্যের রাজধানী হিসেবে ঘোষিত হয়। এটি তুরস্কের সংস্কৃতি এবং অর্থনীতির কেন্দ্রস্থল। ১৯২৩ সাল পর্যন্ত এখানেই ছিল তুরস্কের রাজধানী। এটি তুরস্কের বৃহত্তম শহর যার জনসংখ্যা ১ কোটি ২৮ লক্ষ। ইস্তানবুলের আয়তন ৫ দশমিক ৩৪৩ বর্গ কিলোমিটার। ইস্তানবুল একটি আন্তর্মহাদেশীয় শহর, এর এক তৃতীয়াংশ জনসংখ্যা এশিয়ায় বসবাস করলেও এইটি ইউরোপর বাণিজ্যিক এবং ঐতিহাসিক কেন্দ্র। ২০০৪ পর্যন্ত এ শহর সিমান্তপ্রচীর দিয়ে ঘেরা ছিল। ইস্তানবুল মেট্রোপলিটন মিউনিসিপালিটি (এমএমআই) কর্তৃপক্ষকে নগরপ্রদেশে উন্নত করে ৩৯টি জেলায় বিভক্ত করা হয়েছে। বর্তমান মেয়র কাবির তাপবাস। তুরস্কের সাবের প্রধানমন্ত্রী ও বর্তমান রাষ্ট্রপতি রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান ১৯৯৪ সাল থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত ইস্তাম্বুলের মেয়র ছিলেন।

৬. তেহরান
বর্তমানে আয়তনের দিক থেকে তেহরান বিশ্বের সবচেয়ে বড় ২০টি নগরীর একটি। আয়তন ১৩ হাজার ৬৯২ বর্গকিলোমিটার। জনসংখ্যা ৮৪ লক্ষ। ১৭৭৮ সালে কাজার রাজবংশ এই শহরটি রাজধানী হিসাবে গড়ে তোলে। পুরো শহরটি ২২টা পৌরজেলায় বিভক্ত। সবকটি জেলার রয়েছে আলাদা আলাদা প্রশাসনিক কেন্দ্র। প্রতিটি পৌরজেলা আবার পৌরউপজেলায় বিভক্ত। ইরানের সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমাদিনেজাদ ২০০৩ সালে তেহরানের মেয়র পদে নির্বাচিত হন। তিনি ২০০৫ সাল পর্যন্ত এই দায়িত্ব পালান করেন। বর্তমান মেয়র রক্ষণশীলপন্থি নেতা মোহাম্মদ বাগহের ঘালিবাফ। তেহরানের মেয়র নির্বাচন করে থাকে ৩১ সদস্যের ইসলামি সিটি কাউন্সিল অফ তেহরান। সিটি কাউন্সিলের সদস্যরা পৌরজেলা জেলাগুলো থেকে চার বছরের জন্য নির্বাচিত হয়ে আসেন। সিটি কাউন্সিলের চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান কাউন্সিলারদের মধ্যে থেকে বেছে নেওয়া হয়।

৭. মুম্বাই
ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের রাজধানী। মুম্বাই ভারতের সর্বাধিক জনবহুল শহর এবং বিশ্বের সর্বাধিক জনবহুল শহরগুলিরও অন্যতম। এই শহরের জনসংখ্যা প্রায় এক কোটি চল্লিশ লক্ষ। ভারতের সবচেয়ে ধনী পুর সংস্থা বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন বা বিএমসি (পূর্বনাম বোম্বাই পৌরসংস্থা)। যার ২০ হাজার কোটি টাকার বার্ষিক আর্থিক বাজেট ভারতের অনেক ছোট রাজ্যের বাজেটকেও ছাড়িয়ে যায়। দেশটির ৫ শতাংশ জিডিপি এই শহর থেকেই উৎপাদিত হয়। মুম্বাই ভারতের বাণিজ্য ও বিনোদনের অন্যতম কেন্দ্র। মুম্বাই পৌরসভা কর্তৃপক্ষের নির্বাচনী আসর ২২৭টি। পৌর কাউন্সিলরগণ আড়াই বছরের মেয়াদে একজন মেয়রকে নির্বাচিত করেন। মিউনিসিপ্যাল কমিশনার পৌরসংস্থার মুখ্য কার্যনির্বাহী আধিকারিক ও প্রশাসনিক শাখার প্রধান। যাবতীয় প্রশাসনিক ক্ষমতা তাঁর হাতেই ন্যস্ত। বর্তমান মেয়র উগ্র হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠী শিবসেনা’র নেতা স্নেহল আম্বেকার।

৮. মস্কো
মস্কোভ নদীর তীরে অবস্থিত রাশিয়ার রাজধানী। এটি তদানীন্তন সোভিয়েত ইউনিয়নেরও রাজধানী ছিল। মস্কোর বর্তমান মেয়র রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের অন্যতম রাজনৈতিক মিত্র সার্গেই সোবিয়ানিন। তিনি প্রেসিডেন্ট পুতিনের সাবেক শীর্ষ সহযোগী (চিফ অব স্টাফ) ছিলেন। ২০১৩ সালে তিনি সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হন। মস্কো ১২টি প্রশাসনিক বিভাগ, ১৪৬টি প্রশাসনিক জেলা এবং ১৪৬টি পৌর অঞ্চলে বিভক্ত। প্রতিটি প্রশাসনিক বিভাগ এবং জেলা স্বায়িত্বশাসিত স্থানীয় সরকার কর্তৃক পরিচালিত হয়ে থাকে। মস্কোর মেয়র পদাধিকারবলে এই সব পৌরজেলা জেলা নিয়ন্ত্রণ করে থাকেন। মস্কোর মেয়র তারা কাজ সুষ্ঠ ভাবে করাব জন্য অনেক কর্মকর্তা এবং পরিচালক নিয়োগ দিতে পারেন। এমনকি ডেপুটি মেয়রকেও নিয়োগ দিতে পারেন মেয়র। রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে সব চেয়ে বিশাল বাজেট মস্কো শহরের।

৯. টোকিও
জাপানের রাজধানী, হোনশু দ্বীপের পূর্বে অবস্থিত। জাপানের তৎকালীন সম্রাট মেইজি ১৮৬৮ সালে টোকিও শহরকে জাপানের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেন। সেই থেকে দেশটির অর্থনীতি, রাজনীতি, সংস্কৃতি, বাণিজ্যকেন্দ্র পরিণত হয় শহরটি। এ শহরের আয়তন ২,১৮৭ দশমিক ৮ বর্গকিলোমিটার। জনসংখ্যা প্রায় ২ কোটি ২০ লাখ। ১৯৪৩ সালে টোকিও মহানগরকে ‘টাকিও প্রিফেকচার’-এ উন্নত করে একাধিক প্রশাসনিক অঞ্চলে ভাগ করা হয়। ‘সিটি অফ টোকিও’ একটা শহর হলেও প্রশাসনিক ভাবে ‘টোকিও সিটি গভর্নমেন্ট’ ২৩টি ওয়ার্ড (কু) এবং ২৫টি আলাদা সিটি (সি) নিয়ে গঠিত। প্রশাসনিক ভাবে প্রতিটি ওয়ার্ডই এক একটি শহর। প্রতিটি ওয়ার্ড গভর্নররা প্রত্যক্ষ ভোটে ৪ বছরের জন্য নির্বাচিত হয়ে থাকেন। টোকিও’র বর্তমান মেয়র সাবেক টেলিভিশন উপস্থাপক ও মন্ত্রী ইয়োইসি মাসুজো।

১০. নিউ ইয়র্ক সিটি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম এই শহর। এক সময় দেশটির রাজধানী ছিল। বর্তমান বিশ্বে নিউ ইয়র্ক সিটি অন্যতম প্রধান বাণিজ্যিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা কেন্দ্র। জাতিসংঘের সদর দপ্তর এখানে অবস্থিত।এই শহরে বসবাসকারীদেরকে নিউ ইয়র্কার বলা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য শহরগুলো একটি নির্দিষ্ট কাউন্টির ক্ষুদ্র অঞ্চল জুড়ে অবস্থান করলেও নিউ ইয়র্ক শহরটি পাঁচটি পৃথক পৃথক কাউন্টি নিয়ে গঠিত। এই কাউন্টিগুলোকে ‘বরো’ বলা হয়। শহরটি একসময় মূলত ম্যানহাটন বরো নিয়েই গঠিত ছিল। ১৮৯৮ সালে আশেপাশের বেশ কয়েকটি অঞ্চল এই শহরের অন্তর্ভুক্ত করে নতুন চারটি বরো গঠন করা হয়। এগুলো হল: কুইন্স, ব্রুকলিন, ব্রঙ্কস এবং স্টেটেন দ্বীপ। একমাত্র ব্রঙ্কস যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূমিতে অবস্থিত। নিউ ইয়র্ক সিটির বর্তমান মেয়রের নামবিল ডি ব্লাজিও।

 

 

বিশ্বসেরা শীর্ষ ১০ মেয়র

২০০৪ সালে ওয়ার্ল্ড মেয়র প্রজেক্ট শুরু হয়। এই প্রকল্পের লক্ষ্য সফল মেয়রদের পরিচয় বিশ্বজুড়ে তুলে ধরা এবং সফলতার স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মান জানানো। এই ধারাবাহিকতায় তারা তৈরি করে সফল মেয়রদের তালিকা। তাঁদের সর্বশেষ তালিকাটি প্রকাশিত হয় ২০১৪ সালে। এই তালিকা অনুসারে বিশ্বসেরা শীর্ষ ১০ মেয়র হলেন:
১. নাহিদ নেন্সি, কাল্গারি (কানাডা)
২. ড্যানিয়েল তের্মন্ট, গেন্ট (বেলজিয়াম)
৩. ট্রাই রিস্মাহারিনি, সুরাবায়া (ইন্দোনেশিয়া)
৪. কার্লোস অকারিজ, সুক্রে (ভেনিজুয়েলা)
৫. জেড প্যাট্রিক মাবিলোগ, ইলৈলো সিটি (ফিলিপাইন)
৬. আলব্রেশট সচরোতের, জেনা (জার্মানি)
৭. অন্নিসে পার্কার, হিউস্টন (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র)
৮. ইয়ান্নিস বৌতারিস, থেসালোনিকি (গ্রীস)
৯. গিউসি নিকলিনি, লাম্পেডুসা (ইতালি)
১০. আজিজ কোকাওগ্লু, ইজমির (তুরস্ক)

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.