যে ৪টি কাজ ইন্টারভিউয়ে এনে দেবে সাফল্য

যে ৪টি কাজ ইন্টারভিউয়ে এনে দেবে সাফল্য

‘ইন্টারভিউ’ শব্দটির সঙ্গে ‘টেনশন’ শব্দটি অতোতপত্রভাবে জড়িত। ইন্টারভিউয়ের ডাক পড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় টেনশনের ঘণ্টা পেটানো। এমনটা হওয়া খুব অস্বাভাবিকও নয়। কারণ এই ইন্টারভিউয়ের সাফল্যের উপরেই নির্ভর করে আপনার চাকরি পাওয়া, না-পাওয়া। কীভাবে জুটবে সাফল্য। মিলবে চাকরি নামক সোনার হরিণ? আছে কি সাফল্যের কোনও চাবিকাঠি?

ইন্টারভিউয়ে জন্য ভালভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে, নিজেকে ভালোমতো মেলে ধরতে হবে, কিংবা ফর্মাল পোশাকে যেতে হবে হবে — এই জাতীয় পরামর্শের সঙ্গে সঙ্গে এই ৪টি কাজ করলে বলা যায় সাফল্য অবশ্যই আসবে। আসুন জেনে নিই, কি সেই ৪টি কাজ?

• ইন্টারভিউয়ে যাওয়ার আগে জেনে নেওয়ার চেষ্টা করুন। ইন্টারভিউ বোর্ডে কারা রয়েছেন। তাঁদের প্রত্যেকের সম্পর্কে নিজস্ব বন্ধুবান্ধব-আত্মীয়স্বজন-সহকর্মী-সহপাঠীদের নেটওয়ার্ক থেকে আলাদাভাবে খোঁজখবর নিন। এছাড়া অনলাইনে গুগল সার্চ থেকে শুরু করে বা ফেসবুক – লিংকডিন-এর মতো নেটওয়ার্কিং সাইটে তাঁদের সম্পর্কে কী দেখা যাচ্ছে, দেখে নিন। তাদের কার আগ্রহের জায়গা কোনটি, কে কী ধরনের প্রশ্ন করতে পারেন তা আঁচ করা যাবে। আপনার আগে যাঁরা ইন্টারভিউ দিয়েছেন, তাঁদের মধ্যে পরিচিত কেউ থাকলে, তাঁর কাছে খোঁজ নিতে পারেন। এতে প্রস্তুতির কাজটিও সহজ হবে।

• রেজিউমে বা বায়োডাটায় লেখা আপনার পারদর্শিতার জায়গাগুলোর বাইরেও যে আপনার উৎসাহ রয়েছে, তা প্রমাণের জন্য সচেতন ভাবে ইন্টারভিউয়ের সময় মাঝেমধ্যে আলোচনাকে আপনার বায়োডাটায় উল্লিখিত বিষয়গুলির বাইরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করুন। তবে অবশ্যই আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে, আপনার কথাবার্তা যেন অপ্রাসঙ্গিক না হয়ে পড়ে। আলোচনার কোনও একটি সূত্র ধরেই আপনাকে আলোচনাকে অন্য খাতে নিয়ে যেতে হবে।

• জব সাটিসফিকশন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যে চাকরির জন্য এসেছেন, তার সঙ্গে আপনার একটা আত্মিক যোগ এবং আবেগমূলক যোগ আপনার রয়েছে, তা বোঝান। শুধু টাকা উপার্জনের জন্য নয়। এই চাকরিটি পেলে আপনি যে শুধু আর্থিক দিক থেকে নয়, মানসিক দিক থেকেও লাভবান হবেন, এটা কথাবার্তায় ফুটিয়ে তুলুন।

• বিশেষজ্ঞদের মতে, ইন্টারভিউ প্রধানত ব্যক্তিত্বের পরীক্ষা। জ্ঞান নয়, ব্যক্তিত্বই যাচাই করা হয় এতে। কাজেই কোনও প্রশ্নের উত্তর না জানলে, স্পষ্টভাবে বলে দিনে, ‘‘এই প্রশ্নের উত্তর আমার জানা নেই।’’ ভুল বা ভাসা ভাসা উত্তর দেওয়ার তুলনায় এতে কাজ হয় অনেক বেশি। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মতে, এটিই ইন্টারভিউয়ে সাফল্যের চাবিকাঠি। কারণ এতেই আপনার ব্যক্তিত্বের জোর অনেক বেশি পরিস্ফুট হয়।

কাজেই আগামী ইন্টারভিউ দিতে যাওয়ার আগে এই ৪টি কাজ করে আত্মবিশ্বাস সঞ্চয় করুন। মনে রাখবেন, সফল আপনি হবেনই।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close Menu