ক্রিকেটারদের বিখ্যাত প্রেম কাহিনী

ক্রিকেটারদের বিখ্যাত প্রেম কাহিনী

গ্রন্থনা: শামস্ বিশ্বাস

মনসুর আলী খান পাতৌদি – শর্মিলা ঠাকুর
ষাটের দশকের শেষ দিকের ঘটনা। সে সময়কার ভারতীয় দলের কাণ্ডারি তখন নবাব মনসুর আলি খান পতৌদি। পিতা নবাব ইফতিখার আলী খান পতৌদি’র মত মাত্র ২১ বছর বয়স থেকে সামলাচ্ছেন ক্যাপ্টেন ক্যাপ। অন্যদিকে বলিউড অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর কলকাতার বিখ্যাত ঠাকুর পরিবারের মেয়ে। এন ইভিনিং প্যারিস ছবিতে ভারতীয় নায়িকাদের মধ্যে প্রথম বিকিনি পরে পর্দায় হাজির হন তিনি। তাদেও প্রেমের শুধু গুঞ্জন না। সত্যিকার অর্থেই এ প্রেম সাড়া জাগিয়েছিলো সারা ভারত জুড়ে। কারণ সেই সময় একজন নবাব বংশের মুসলমান ছেলের সাথে একজন হিন্দু বলিউড অভিনেত্রীর প্রেম-ভালোবাসা সোজা চোখে দেখার বিষয় ছিলো না, ছিলো বাঁকা চোখে দেখার। কিন্তু কোন কিছুকে তোয়াক্কা না করে এই যুগল বিয়ে করে ফেলেন এবং প্রমাণ করেন, তারা দু’জন পরস্পরের জন্য আদর্শ পতি-পত্নী।

বিরাট কোহলি – আনুশকা শর্মা
বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি এবং বলিউডের হর্ট ভিভা আনুশকা শার্মার প্রেম কাহিনী ‘টক অব দ্য টাউন’। ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে একটি শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করতে গিয়ে তাদের প্রথম সরাসরি সাক্ষাৎ। ধারণা করা হয়, তখন থেকেই বাইশ গজের ব্লাস্টার ব্যাটসম্যান আর বি-টাউনের শীর্ষ অভিনেত্রীর মনে প্রেমের বীজ অঙ্কুরিত হয়। এরপর থেকে এই সেলেব্রেটির প্রেমের লুকোচুরির জন্য সংবাদপত্রের ‘খেলার পাতা’য় আনুশকার নাম আর ‘বিনোদন পাতা’য় বিরাটের নাম নিয়মিত হয়ে পড়েছে। এক সময় ক্রিকেটার সুরেশের সাথেও আনুশকা শর্মার সম্পর্ক ছিল। দুইজনকে একসাথে এক রেস্টুরেন্টে দেখা যায়। কিন্তু সম্পর্কটা দীর্ঘায়িত হয়নি। কারণ হিসাবে পরবর্তীতে সুরেশ জানায় যে, তার সময় ছিলো না সম্পর্কটাকে ধরে রাখার মতো।

যুবরাজ সিং – কিম শর্মা
সাবেক ভারতীয় ফাস্ট বোলার এবং পাঞ্জাবী চলচ্চিত্র তারকা যুগরাজ সিংয়ের পুত্র যুবরাজ সিং ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম পোস্টারবয়। সুদর্শন এই ড্যাসিং অলরাউন্ডারের প্রেমে কেও পড়বে না এমন তো হওয়ার কথা নয়। বলিউডের একাধিক অভিনেত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছেন তিনি। যুবরাজ ও ‘মোহাব্বতে’খ্যাত কিম শর্মার প্রেম নিয়ে গুঞ্জন বি-টাউনে একসময় সাড়া ফেলেছিলো। দীর্ঘ চার বছর তারা এক সাথে ছিলেন। কিন্তু এই যুগলের সম্পর্কটা ২০০৭ সালে ভেঙ্গে যায়। জানা যায়, যুবরাজের মা শবনম সিং চলচ্চিত্রে এবং ফটোশ্যুটে কিমের ‘অতিসাহসী’ উপস্থিতি এবং লাইফস্টাইলে বিব্রত ছিল। ফলে তার অসমর্থনেই ভেঙে যায় এই জুটির প্রেম। পরে ২০১১ সালে কেনিয়ার এক ব্যবসায়ীকে বিয়ে করে নাইরোবিতে সংসার পাতিয়ে ফেলেন কিম। আর ওই বছরই ভারতের বিশ্বকাপ জয়ে সেরা অবদান রেখে বিশ্বকাপে ম্যান অব দ্য সিরিজ হন যুবরাজ সিং। ২০০৮ সালে ফাঁস হয় ‘ওম শান্তি ওম’ তারকা দীপিকা পাড়ুকোন ও যুবরাজের প্রেমের বিষয়টা। নির্ভর যোগ্য কিছু সোর্স থেকে বিষয়টার সত্যতা ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো নিশ্চিত করে। সোর্স বিভিন্ন সময় তাদের গোপন সাক্ষাতের স্থানও বাতলে দেয়। দীপিকার পরে ২০১২ সালে যুবরাজের প্রেমিকার তালিকায় আসেন ‘জুলি’ চলচ্চিত্রে ‘সাহসী’ অভিনয় করা সাবেক মিস ইন্ডিয়া ও বলিউডের অভিনেত্রী নেহা ধুপিয়া। যুবরাজ সিংয়ের সঙ্গে মডেল আনচাল কুমারকে বেশ কয়েকটি পার্টিতে ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত শেয়ার করতে দেখা যায়। যুবির অসুস্থতার পর এই সম্পর্ক নিয়ে অবশ্য খুব বেশি জলঘোলা হয়নি।

রবি শাস্ত্রী – অমৃতা সিং
ভারতীয় দলের প্রাক্তন দলনেতা রবিশঙ্কর জয়াধ্রীতা শাস্ত্রী যেমন খেলার মাঠে ছিলেন দুর্দান্ত তেমনি স্মার্ট ছিলেন চলনে-বলনে, ফ্যাশনেও পরিপাটি। তিনি ছিলেন একজন অল-রাউন্ডার যিনি ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন এবং বাঁহাতি বোলার ছিলেন। এই সব গুনের জন্য হয়তো সেই সময়ের জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী অমৃতা সিং এর মনের ঘরে সহজেই ঢুকে পড়েছিলেন। কিন্তু সম্পর্কটি টিকেনি বেশি দিন। সম্পর্কটা এনগেজমেন্ট পর্যন্ত গড়ালেও বিয়েতে পরিণত হয়নি। গুঞ্জনের মতোই বাতাসে মিশে যায় সম্পর্কটিও। ১৯৯০ রবি শাস্ত্রী বিয়ে করেন রিতু সিংকে। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে অমৃতা সিং তার চেয়ে ১২ বছরের ছোট সাইফ আলী খানকে বিয়ে করেন। ২০০৪ সালে অমৃতা-সাইফের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদ হয়।

মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন – সঙ্গীতা বিজলানি
আনুশকা-কোহলির মত ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক এবং রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের সাথে পরিচয় হয় বলিউড অভিনেত্রী সঙ্গীতা বিজলানির। বিজলানির মিডিয়ায় আবির্ভাব মিস ইন্ডিয়া হয়ে। ধীরে ধীরে সম্পর্ক গড়ায় ঘনিষ্ঠতায়। সেই সময় তাঁদের প্রেমসংক্রান্ত লুকোচুরি গণ ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। ১৯৯৬ সালে বিজলানিকে বিয়ে করার আগে প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স দেন আজহারউদ্দিন। আগের সংসারে তাঁর দুই ছেলে ছিল। বিয়ের সময় বিজলানির নাম রাখা হয় শর্মিলা ঠাকুরের মত ‘আয়েশা’। দারুণ এক জুটি ছিলেন তাঁরা। তবে ২০১০ সালে সঙ্গীতা বের হয়ে আসেন তাদের দাম্পত্য জীবন থেকে। তিনি অভিযোগ করেন আজহারউদ্দিনের অন্য একজনের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে।

জহির খান – ইশা শারভানি
এই দুইজনের প্রেমের গুঞ্জন বিনোদন পাড়া মাতিয়ে রেখেছিলো খুব। ইশা শারভানির সাথে ভারতীয় ফাস্ট বোলার জহির খানের সম্পর্কটা ৮ বছর টিকে ছিলো। শোনা যায় বিয়ের পরে দু’জন কোথায় থাকবেন এ নিয়ে বাসাও খোঁজাখুঁজি করেছিলেন। কিন্তু হঠাৎ একদিন ইশা ঘোষণা দিয়ে বসলেন, আমি এখন সিঙ্গেল। গুঞ্জন আছে তারা বিয়েও করেছিলেন। কিন্তু হঠাৎ কেন জানি থমকে গেল সব। ‘সব নেতিবাচক’ বিষয় জানার দরকার নেই বলে এড়িয়ে গিয়েছিলেন ইশা। এক সময় দু’জনই জানালেন সম্পর্ক শেষ। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া নিয়ে এই জুটির ঘনিষ্ঠদের বক্তব্য, তাদের অবস্থানগত দূরত্বের কারণে সম্পর্ক শেষ পর্যন্ত টেকেনি। এরপর জহির খানকে দেখা গেছে ভিজে থেকে সিঙ্গার হয়ে যাওয়া রামোনা এরেনার সাথে পার্টিতে।

ব্রেট লি – প্রিতী জিনতা
সর্ব কালের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার ব্রেট লি ও প্রিতী জিনতার সম্পর্কের বিষয়টি এতোটা প্রকাশ পায়নি, তবে তাদের পরস্পরের হৃদয়ে পরস্পরের প্রতি যে সফ্টকর্ণার ছিলো, সেটা কারো দৃষ্টি এড়ায়নি। একটা সময়ে আইপিএলে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবে খেলতেন ব্রেট লি। ওই দলের মালকিন আবার প্রীতি। ফলে একাধিক অনুষ্ঠানে পাশাপাশি দেখা গিয়েছিল ব্রেট-প্রীতিকে। ব্রেট লি ২০০৬ সালে এলিজাবেথ কেম্পকে বিয়ে করেন। তাদের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। ২০০৯ সালে তাদের বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়। পরে জানা যায় কেম্প ব্রেট লির অস্টেলিয়া ক্রিকেট দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সময় সূচী নিয়ে বিরক্ত ছিলেন। এই সময়ের একাকী জীবন তাকে কষ্ট দিত এবং তিনি একজন বেসবল খেলোয়াড়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। ২০১৪ সালে ব্রেট লি লানা অ্যান্ডারসনকে বিয়ে করলে প্রিতি জিনতার সাথে তাঁর সম্পর্কের সম্ভাবনা উবে যায় পুরোদমে।

শোয়েব মালিক – সানিয়া মির্জা
২০১০ সালে সালে নানা বিতর্কের মধ্যে পাকিস্তনের অলরাউন্ডার ক্রিকেটার এবং সাবেক অধিনায়ক শোয়েবের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন ভারতীয় তারকা টেনিস প্লেয়ার সানিয়া মির্জা। সানিয়ার আগে প্রাক্তন ‘ভারত সুন্দরী’ সায়ালি ভগতের সঙ্গে সোয়েবের একটা সম্পর্ক ছিল বলে অনেকেই মনে করেন। সানিয়ারও বাগদত্তার হয়ে গেছিল। এতদিন ভালো কাটলেও ২০১৪ সালের শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছে যে, দুজনের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়ে গিয়েছে। জুলাইতে নিজেদের রোমান্টিক পোজের ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন সানিয়া। কিন্তু ইদানীং ফেসবুকে সে পোস্টও মুছে দিয়েছেন তিনি। অনেকেই বলছেন, আগে কোথাও খেলতে গেলে শোয়েবের কথা অবশ্যই বলতেন সানিয়া। কিন্তু এখন শোয়েবের কথা উঠলে নাকি সেই প্রসঙ্গে এড়িয়ে যান সানিয়া। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে শত্রুতাটা বেশ পুরনো। তারপরও দুটি বিরোধপূর্ণ দেশের দুই জগতের দুই তারকা গাঁট বেঁধেছিলেন।

মোহাম্মদ আসিফ – ভিনা মালিক
বিতর্কিত পাকিস্তানি বলিউড অভিনেত্রী ভিনা মালিকের সাথে সে দেশের ফাস্টবোলার ক্রিকেটার মোহাম্মদ আসিফের সঙ্গে এক সময় খুবই ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তবে গোপনে বিয়ের কথা উভয়েই অস্বীকার করেছিলেন। কিন্তু তাদের সম্পর্ক এক সময় খারাপ হয়ে যায়। আসিফের বিরুদ্ধে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ওঠার পর তাতে সমর্থন দেন ভিনা। এ অভিযোগ প্রমাণ করার জন্য তিনি তাদের ব্যক্তিগত ফোনের রেকর্ডও কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে দিয়েছিলেন বলে জানা যায়।

ওয়াসিম আকরাম – শ্যানিয়েরা
২০০৯ সালে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও কিংবদন্তী পেসার ওয়াসিম আকরাম প্রথম স্ত্রী মনোবিজ্ঞানী হুমা খান মারা যান। পরবর্তীতে পেশাগত প্রয়োজনে ভারতে থাকা ওয়াসিমের সাথে সাবেক মিস ইউনির্ভান ও বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেনের সাথে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক শোনা যায়। এই গুঞ্জন গুঞ্জন থেকে যায় যায় যখন ওয়াসিম অস্ট্রেলিয়ান মেয়ে শ্যানিয়েরা টমসননের প্রেমে পড়েন। ২০১৩ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। প্রথম স্ত্রীর দুই সন্তানের কথা ভেবে গত বছর লাহোরে অস্ট্রেলিয়ান বান্ধবী শ্যানিয়েরাকে বিয়ে করেন আকরাম। বিয়ের পর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন শ্যানিয়েরা। নতুন সংসারেও জন্ম নেয় আরেক পুত্রের। ৩ ছেলের দেখাশোনার জন্য পাকিস্তানেই থাকার সিদ্ধান্ত নেন তারা।

ইমরান খান – রেহাম খান
১৯৯২ সালে পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক এবং বর্তমানে রাজনীতিবিদ ইমরান খান নিয়াজী ছিলেন ‘রোমিও’ টাইপের মানুষ। সম্প্রতি ছিলেন ইমরান দ্বিতীয়বারের মত বিয়ে করেছেন পাকিস্তানের একটি বেসরকারি চ্যানেলের সংবাদ পাঠক ও বিবিসির সাবেক আবহাওয়া সংবাদের ঘোষক রেহাম খানকে। আগের স্ত্রী জেমিমা গোল্ডস্মিথের সঙ্গে ইমরানের সম্পর্কটা ভেঙ্গে গেছে প্রায় ১০ বছর হয়ে গেছে। বলিউড তারকা জিনাতের সাথেও একসময় তুমুল ডেটিং শুরু হয়েছিল তার। তবে এই সম্পর্কটিতে যতটা ইমরানের ভাব ছিল, তার চেয়ে বেশি ছিল জিনাতের। বলিউড অভিনেত্রী তখন ঘোষণাও দিয়েছিলেন, ইমরানের সাথে বিয়ে হলে অভিনয় ছেড়ে দেবেন। অভিনয় ছাড়তে হয়নি। ইমরানই তাকে ছেড়েে গেছেন। বাঙালি অভিনেত্রী মুনমুন সেনের সঙ্গেও ইমরানের সম্পর্কের কথা শোনা গিয়েছিল।

ভিভ রিচার্ডস – নীনা গুপ্ত
সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ধরা হয় ভিভ রিচার্ডসকে। ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের এই ক্রিকেটারের সাথে দারুণ এক সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ভারতীয় অভিনেত্রী নীনা গুপ্তের। বিবাহিত’র মতই ছিল তাদের সম্পর্ক। তবে এটিও কম সময়ের। এই জুটির মাসাবা নামের একটি মেয়ের জন্ম হয়। মেয়েটি এখন মায়ের সাথেই আছে। নীনা গুপ্ত এখন টিভি সিরিয়ালে অভিনয় করেন। ভিভ রিচার্ডস-নীনা গুপ্ত: সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ধরা হয় ভিভ রিচার্ডসকে। ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের এই ক্রিকেটারের সাথে দারুণ এক সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ভারতীয় অভিনেত্রী নীনা গুপ্তের। বিয়ে না করেই এই জুটি মাসাবা নামের একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। মেয়েটি এখন মায়ের সঙ্গেই আছে। নীনা গুপ্ত এখন টিভি সিরিয়ালে অভিনয় করেন।
শেন ওয়ার্ন-লিজ হার্লে: নারীঘটিত বিষয়ে বরাবর বিতর্কে থাকেন অস্ট্রেলিয়ার এই গ্রেট ক্রিকেটার। আর প্রায়ই নারীঘটিত বিষয় আর বিতর্কে তার নাম আসত। নারী কেলেঙ্কারিকে কেন্দ্র করে সংসারও ভেঙেছে সর্বকালরে সেরা এই স্পিন জাদুকরের। স্ত্রীর সঙ্গে ওয়ার্নের বিচ্ছেদ ঘটে ২০০৯ সালে। সম্পর্ক নবায়নও করতে চেয়েছিলেন ওয়ার্ন। তবে ব্রিটিশ মডেল-অভিনেত্রী হার্লের সাথে পরিচয়ের পর তার আর দরকার পড়েনি। প্রায় বছর দুয়েক একত্রে বসবাসও করেছেন তারা। বেশ অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটানোর ছবি প্রকাশ হয়েছিল তাদের। কিন্তু গত বছরের শেষের দিকে ভেঙে গেছে এ সম্পর্কও।

মোহসিন খান – রিনা রায়
জনপ্রিয় ভারতীয় অভিনেত্রী রিনা রায় যখন পাকিস্তানি ওপেনার ব্যাটসম্যান মোহসিন খানের প্রেমে পড়েন তখন তাতে যোগ হয় ভারত-পাকিস্তান বর্ডারের বাড়তি উত্তেজনা। তাদের সম্পর্কে ছিল রোমান্স, নাটকীয়তা ও উত্তেজনা। তারা বিয়ে করে মুম্বাইতে বসবাস শুরু করেন। ব্যাট-প্যাড তুলে রেখে বাইশ গজের পিচের বদলে বলিউডে রূপালি দুনিয়ায় ক্যারিয়ার শুরু করেন মোহসিন খান। কিন্তু পারিবারিক সমস্যাসহ নানা কারণে তাদের বিয়ে টেকেনি। ফলে তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়। মোহসিন পাকিস্তানে ফিরে যায়। এই জুটি এক কন্যা সন্তানের জনক-জননি।

সৌরভ গাঙ্গুলী-নাগমা
‘দাদা’র কেরিয়ারে তখন দুর্দান্ত সময় চলছে এই সময় হঠাৎই সৌরভ-নাগমা ‘প্রেম’ কাহিনীর গুঞ্জন। গণমাধ্যমের তখন প্রবল আলোচনা চলতে থাকে এই সম্পর্ক নিয়ে। নাগমা ছিল দক্ষিণের নায়িকা। তাদের দু’জনকে এক সময় নিয়মিত অন্ধ্রপ্রদেশের শিবা মন্দিরেও যেতে দেখা যেত। তবে সব সময়ই সৌরভ এ ব্যাপারে নিশ্চুপ ছিলেন। নাগকে নিয়ে গুঞ্জন শেষে হলে শুরু হয় বাঙালি অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর সঙ্গে সম্পর্কের কথা। পরবর্তী সময়ে জানা যায়, এক্কেবারে ভিত্তিহীন রটনা। আসলে সৌরভ এবং ঋতুপর্ণা বেহালায় এক গৃহশিক্ষকের কাছে একই সঙ্গে পড়তে যেতেন। সৌরভের থেকে নিচু ক্লাসেই পড়তেন ঋতুপর্ণা। এর চেয়ে বেশি কিছু নয়।

গ্যারি সোবার্স-অঞ্জু মহেন্দ্রু : ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি স্যার গ্যারি সোবার্সের সঙ্গে অঞ্জু মহেন্দ্রুর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলে জানা যায়। কিন্তু পরে মঞ্জুর সঙ্গে বলিউডের প্রথম সুপারস্টার রাজেশ খান্নার সম্পর্ক তৈরি হয়।

জ্যাক ক্যালিস – সিন্ডি নেল
ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার তিনি। ডানহাতি ব্যাটসম্যান এবং ফাস্ট মিডিয়াম সুইং বোলার হিসাবে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন ক্রিকেট বিশ্বকে। তিনি ইতিহাসের একমাত্র ক্রিকেটার যিনি টেস্ট ও ওডিআই ক্রিকেট এ ১১,০০০ এর বেশি রান এবং ২৫০ উইকেট নিয়েছেন। ক্রিকেটের মত দুর্দান্ত ক্যারিয়ার তাঁর প্রেমের ক্ষেত্রে। ২০০২ সালে তিনি সাবেক বিশ্বসুন্দরী এবং স্বদেশী মডেল সিন্ডি নেলের সঙ্গে প্রেম করেন। বাগদানও সম্পন্ন কওে ফেলেন এই জুটি। কিন্তু নয় মাসের মাথায় ভেঙে যায় এই জুটি। এছাড়া ২০০৩ সালের সুন্দরী প্রতিযোগিতার রানারআপ মারিসা এগলির সঙ্গে তার উষ্ণ সম্পর্ক ছিল। ক্যালিসের সর্বশেষ প্রেম ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার সুপার মডেল শ্যামোনের জারদিনের সঙ্গে। বর্তামানে কেপটাউনের মডেল কিম রিভাল্যান্ডের সম্পর্ক রয়েছে জ্যাক ক্যালিসের।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.