অবাক করা সব বিয়ের বর-কনে!

বিয়ে মানেই একটি পবিত্র বন্ধন। প্রতিটি ধর্মেই আলাদা আলাদা রীতিতে বিয়ে সম্পন্ন করা হয়। তবে সব রীরিতেই এটা মানা হয় হয় যে বিয়ে মানেই একজন নারী আর একজন পুরুষের বিয়ে। কিন্তু পৃথিবীতে এমন অনেক আজব বিয়ে আছে যেগুলো কোনো ধর্ম, বর্ণ কনো কিছুই মানা হয় না। তার থেকেও আজব কিছু বিয়ে আছে যেগুলো মানুষ তো অনেক পরের বিষয়, সেখানে সঙ্গী হিসেবে বেছে নেওয়া হয় সাপ, পুতুল এমন কি আইফেল টাওয়ার-কেও! আসুন তাহলে এমন কিছু আজব বিয়ের ঘটনা আজ জেনে নেই।

  • নিজের প্রতি ভালবাসা এতটাই যে নিজেকেই বিয়ে করে নেন চিনের ৩৯ বছর বয়সের লিউ ইয়ে। ফোম বোর্ডে নিজের মূর্তি বানিয়ে তাকে সুন্দর লাল জামায় মহিলা সাজান। নিজের মূর্তিটাকে বিয়ে করেন লিউ। এই বিয়েতে উপস্থিত ছিল ১০০ আতিথি।
  • সাবেক মার্কিন সেনা, তীরন্দাজ এবং বস্তুর যৌনতার পক্ষে আন্দোলনকারি এরিকা লা ট্যুর কোনো পুরুষের প্রতি নয়, তিনি আকর্ষণ অনুভব করতেন জড় পদার্থের প্রতি। পাগলের মতো ভালবাসতেন আইফেল টাওয়ার-কে। ৩ বছর আইফেল টাওয়ারকে শুধু মনে মনেই ভালবেসে গেছেন। ২০০৭ সালে তার প্রেম নিবেদন এবং বিয়ে। বিবাহিত জীবন খুব সুখে কাটছে বলেই তার দাবি।
  • টিভিতে দুই জার্মানিকে পৃথককরা বার্লিনের দেওয়াল দেখে প্রেমে পড়ে যান এইজা রিট্টা। মাঝে মাঝে সেখানে যেতেনও। বার্লিন ওয়ালের চারপাশে কড়া নিরাপত্তা থাকায় কখনোই নিজের প্রেম নিবেদন করতে পারতেন না। ১৯৭৯ সালে দেওয়ালের সঙ্গে বিয়ে করে নিজের নাম পরিবর্তন করে ফেলেন। ১৯৮৯ সালে যখন এই দেওয়ালটি ভেঙে ফেলা হয় মিসেস বার্লিন ওরফে এইজা স্বামীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন।
  • মারিয়া গ্রিফিনের ঘটনা আবার একটু অদ্ভুত। সান বার্নারদিনোর বাসিন্দা মারিয়া জড় পদার্থের প্রতি তীব্র আকর্ষণ অনুভব করতেন। সেই তালিকায় বহুতল থেকে ট্রাক সবই ছিল। একটি ট্রাকের সঙ্গে বিয়ে করেন। ট্রাকের সঙ্গে হানিমুনেও যান। তার দাবি, তার সেক্স লাইফ ভীষণই সুখে কাটছে।
  • বিশাল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জাপানীজ নেনে অ্যানেগাসাকি নামের এক তরুণ বিয়ে করেন একটা ভিডিও গেমকে।
  • ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে গঙ্গা ও প্রকাশ নামে দুটি গরুর মাঝে বিয়ে দেয়া হয়। পাঁচ হাজার গ্রামবাসী এই বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। একইভাবে, কিছুদিন আগে কুকুরে কুকুরে বিয়ে দিয়ে আলোচিত হয় শ্রীলঙ্কা।
  • ভারতের এক ব্যক্তি প্রায়শ্চিত্ত হিসাবে একটি কুকুরকে বিয়ে করেছিলেন।
  • বৃটেনের দক্ষিণ লন্ডনের অ্যামান্ডা রজার্স প্রায় বিশ বছর আগে প্রথম বিয়ে করেন। কিন্তু সেটা টিকে মাত্র কয়েকমাস। এরপর বিশটি বছর কাটিয়েছেন প্রিয় পোষা কুকুরের সঙ্গে। একজন উপযুক্ত জীবনসঙ্গীর সব গুণ পোষা প্রাণীর মাঝে খুঁজে পেয়ে শেষমেশ বিয়েই করে বসেছেন কুকুরটিকে। আর দশটা বিয়ের আয়োজনের মতো তিনিও বিয়েতে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। তৈরি করেন আলাদা করে বিয়ের পোশাক। বিয়ের অনুষ্ঠানে অ্যামান্ডা সেবাকে চুমুও খান। ২০০ অতিথি উপস্থিত ছিলেন সেই অনুষ্ঠানে। উপস্থিত সবাই নবদম্পতির উপর কাগজের ফুল ছিটিয়ে দেন।
  • সিনডি নামে ডলফিনের প্রেমে পড়ে যান ব্রিটিশ মহিলা শ্যারন। ১৪ বছর ধরে নাকি সিনডিকে ভালবাসতেন তিনি। অনেক বার নিজের মনকে বোঝানোরও চেষ্টা করে বিফল হন। ২০০৬ সালে সিনডিকে নিজের মনের কথা জানান। রীতি মেনে বিয়ে হয় দু’জনের।
  • ভারতের বিমবালা দাস নামে ৩০ ভচরের এক নারী দাবি করেন তিনি একটি কেউটে সাপের প্রেমে পড়েছেন। এতটাই যে, সাপটাকে বিয়ে পর্যন্ত করতে চান। এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর ওড়িশায় খরদার ওই গ্রামে হইচই পড়ে যায়। হিন্দু রীতি মেনে ভালবাসার সাপের সঙ্গেই বিমবালাদেবীর বিয়ে দেওয়া হয় ২০০৬ সালে। প্রায় ২০০০ হাজার মানুষ এই বিয়েতে যোগ দেয় এবং পুরোহিতের সামনে পুরো আধা ঘণ্টা বসে থেকে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী এই বিয়ে সম্পন্ন হয়। গ্রামবাসীদের ধারণা, এই বিয়ে শুভ। এতে গ্রামের উন্নতি হবে।
  • ২০০৮ সালে পাশ বালিশকে বিয়ে করেন কোরিয়ান লি জিন। বালিশটার নাম ছিল ডাকিমাকুরা। বালিশের কভারে বর বাবাজি লি জিন-এর প্রিয় কার্টুন চরিত্র আঁকা ছিল। সে জন্যই বালিশটাকে বিয়ে করেন লি। একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সে তার প্রিয় বালিশটাকে বিয়ের পোশাকে সাজিয়ে ধর্মযাজক ডেকে বিয়ে করেন।
  • মার্কিন যুবক ক্রিস সেভিয়ার তার নিজের ল্যাপটপ কম্পিউটারটাকেই বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেছেন। তবে তার এই বিচিত্র বিয়ের পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে আদালত। কারণ মানুষের সঙ্গে যন্ত্রের বিয়ের কোনো আইন যে নেই। সেজন্য ক্রিস এখন প্রিয়তমা ল্যাপটপটিকে জীবনসঙ্গী করতে আদালতের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছেন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের উটাহ অঙ্গরাজ্যের এক আদালতে নিজের ল্যাপটপ ম্যাক বুকটিকে বিয়ে করার অধিকার চেয়ে ক্রিস ৫০ পৃষ্ঠার একটি আবেদন করেছেন। নিজের এই আবেদন পত্রে আদালতের কাছে ক্রিস যুক্তি দেখিয়েছেন, তিনি সবসময় এই ল্যাপটপটিকে নিয়ে চলাফেরা করেন, এমনকি ঘুমাতেও যান। আদালতের কাছে ক্রিস আরো যুক্তি দেখান যে, যেখানে রাজ্যে সমলিঙ্গের বিয়েতে কোনো বাঁধা নেই, সেহেতু কেউ যন্ত্রকে বিয়ে করতে চাইলেও বাঁধা দেয়া ঠিক নয়। তাই এই বিষয়টি বিবেচনা করে তাকে যেন বিয়ের লাইসেন্স দেয়া হয়।
  • ১৫ বছরের সঙ্গী সেসিলিয়াকে বিয়ে করেন জার্মানির মিটসচারলিচ। সিসিলিয়া তার পোষা একটা বিড়াল। পরে বিড়ালটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। বেশি দিন বাঁচবে না জানায় জীবনসঙ্গীকে হারানোর শোকে খুবই ভেঙে পড়েছিলেন তিনি।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close Menu